সর্বশেষ সংবাদ

রিফাত হত্যায় স্ত্রী মিন্নি গ্রেপ্তার

বরগুনায় বহুল আলোচিত রিফাত হত্যাকাণ্ডে জিজ্ঞাসাবাদের পর গ্রেপ্তার হয়েছেন মামলার এক নম্বর আসামী ও নিহতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি। মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মিন্নিকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। পুলিশ জানিয়েছে, রিফাত হত্যায় স্ত্রী মিন্নি সরাসরি জড়িত। মামলার তদন্তের স্বার্থেই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

পুলিশ বলছে রিফাত হত্যায় স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি জড়িত


বরগুনায় রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মঙ্গলবার রাতে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রাত সাড়ে ৯টায় তাকে গ্রেপ্তারের কথা জানিয়েছেন বরগুনার পুলিশ সুপার (এসপি) মারুফ হোসেন।

এর আগে সকাল পৌনে ১০টার দিকে মিন্নিকে তার বাবার বাড়ি মাইঠা গ্রাম থেকে পুলিশ লাইনে আনার কথা জানিয়েছিলেন বরগুনার এসপি। মামলার প্রধান সাক্ষি হিসেবে তার জবানবন্দি নেওয়া হয় তখন।

রাত সাড়ে ৯টার দিকে এসপির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, রিফাত হত্যায় মিন্নির সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যাওয়ায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এসপি বলেন, “আমরা মিন্নিকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছি। সাক্ষি হিসেবে তার জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে তার সম্পৃক্ততা পাওয়া যাওয়ায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।”

এর আগে এসপি মারুফ হোসেন বেলা ১টার দিকে সংবাদ সম্মেলন করে জানান, মামলার তদন্তের জন্যই মিন্নির সাথে কথা বলা দরকার ছিল। সে জন্য তাকে পুলিশ লাইনে আনা হয়েছে।

এদিকে রিফাত হত্যার ঘটনায় স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি জড়িত ছিল দাবি করে রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ তার গ্রেপ্তার দাবি করেন। এর পরদিন ‘বরগুনায় সর্বস্তরের জনগণ’ ব্যানারে একটি মানববন্ধন থেকেও মিন্নিকে গ্রেপ্তারের দাবি তোলা হয়।

মানববন্ধনের পরপরই বাবার বাড়িতে সংবাদ সম্মেলন ডেকে মিন্নি দাবি করেন, ক্ষমতাধর আসামিদের আড়াল করতেই তার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। শ্বশুরকে চাপ দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করানো হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি।

উল্লেখ্য, গত ২৬ জুন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে রিফাত শরীফকে সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এই ঘটনার একটি ভিডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে দেশজুড়ে ব্যাপক আলোড়ন তৈরি হয়।

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*